অ্যালার্মের শব্দে ঘুম ভাঙলে ক্ষতি হতে পারে শরীরের

প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ২৭, ২০২১

‘আরর্লি ইন দ্যা বেড, আরর্লি ইন দ্যা রাইস’- মানুষের জীবনে সবচেয়ে বেশি শোনা প্রবাদের মধ্যে একটি। যার মানে মানুষ রাতে তাড়াতাড়ি ঘুমাবে এবং সকালে তাড়াতাড়ি উঠবে। আর যা মেনে চলতে পারলেই কমে যায় জীবনের অনেক সমস্যা।

কিন্তু আমরা মানি কই? আর না মানার কারণে স্বাভাবিক ভাবেই ঘুম ভাঙতে দেরি হয়। যার জন্য যথা সময়ে উঠতে ব্যবহার করতে হয় বিভিন্ন ফন্দি, যেমন- অ্যালার্ম। তবে অ্যালার্মের শব্দে রোজ রোজ ঘুম ভাঙার অভ্যাস সৃষ্টি করতে পারে অনেক সমস্যার।

সম্প্রতি সুইডেনের লুন্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি গবেষণাপত্রে ঘুম ভাঙার প্রক্রিয়ার সঙ্গে স্বাস্থ্যের সম্পর্ক নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে। সেখানে বলা হয়েছে, যাঁরা বছরের পর বছর অ্যালার্মের শব্দ শুনে ঘুম থেকে ওঠেন, তাঁদের বেশ কয়েকটি সমস্যা দেখা দেয়।

যেমন- শরীরের যতটা ঘুমের প্রয়োজন তার চেয়ে কম ঘুম হলেই সমস্যা হয়। বেশির ভাগ ক্ষেত্রে অ্যালার্মের শব্দে ঘুম ভাঙলে ঘুমের ঘাটতি পূরণ হয় না। সেই কারণেই ডায়াবিটিসের আশঙ্কা বাড়ে। সমীক্ষা এমনও বলছে, রোজ অ্যালার্মের শব্দ শুনে ঘুম ভাঙলে হৃদরোগের আশঙ্কাও অনেক বেড়ে যায়। কারণ এ ভাবে ঘুম ভাঙলে অ্যাড্রিন্যালিন হরমোনের ক্ষরণ বাড়ে। তাতে বাড়ে রক্তচাপও। আর তার ফলেই ক্ষতি হয় হৃদযন্ত্রের। দীর্ঘ দিন ধরে অ্যালার্মের শব্দে ঘুম ভাঙার অভ্যাস হয়ে গেলে, অনেকেরই অবসাদের মতো সমস্যা দেখা দেয়। দীর্ঘ দিন এমন হতে থাকলে মস্তিষ্কের কর্মক্ষমতাও কমে যায়। এভাবে ঘুম থেকে ওঠার অভ্যাস হয়ে গেলে পেটের সমস্যা দেখা দিতে পারে। বাড়তে পারে অ্যাসিডিটির মতো সমস্যাও।