বিশ্বের সবচেয়ে ছোট গরুর সন্ধান আশুলিয়ার চারিগ্রামে

প্রকাশিত: জুলাই ৬, ২০২১

এবার বিশ্বের সবচেয়ে ছোট আকৃতির গরুর সন্ধান পাওয়া গেছে আশুলিয়া চারিগ্রামে। গরুটির নাম রাখা হয়েছে ‘রানি’। বক্সার জাতের খর্বাকার এই গরুর ওজন মাত্র ২৬ কেজি, যার উচ্চতা ২০ ইঞ্চি। বর্তমানে বাজারের গরুটির দাম উঠেছে সাড়ে ৫ লাখ টাকা পর্যন্ত।

শিকড় এগ্রো লিমিটেড নামে একটি প্রতিষ্ঠান এই খর্বাকার গরুটির মালিক। দু’বছর আগে ভুটানের বক্সার ভুট্টি জাতের নওগাঁর একটি খামার থেকে গরুটি কেনা হয়। তাকে দিনে দুই বেলা খাবার দিতে হয়। সাধারণ গরুর তুলনায় এটির খাবারের চাহিদাও আনেক কম।

গরুটিকে বিশ্ব রেকর্ডে জায়গা করে দিতে ইতিমধ্যে গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন করেছে ‘শিকড় এগ্রো লিমিটেড’। গিনেস বুক কর্তৃপক্ষও প্রাথমিকভাবে সেই আবেদনে সাড়া দিয়েছে। আগামী ৯০ দিনের মধ্যে অফিসিয়াল স্বীকৃতি পাওয়া যাবে বলে আশা করছেন গরুর মালিক। পরীক্ষা-নিরীক্ষায় উত্তীর্ণ হলে বিশ্বে ছোট গরুর রেকর্ডে ভারতকে পেছনে ফেলতে যাচ্ছে বাংলাদেশ।

গরুটির মালিক জানায়, গত ২ জুলাই শুক্রবার গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডস কর্তৃপক্ষের নিকট আমরা আবেদন করেছি। ইন্টারনেট ঘেটে জানতে পেরেছি এটিই পৃথিবীর সবচেয়ে ছোট আকারের গরু। আবেদনের পর গিনেস বুক কর্তৃপক্ষ এর রিপ্লাইও দিয়েছে।

গিনেস কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন, তাদের নিজস্ব কিছু প্রক্রিয়া রয়েছে। তা সম্পন্ন করে তারা আগামী ৯০ দিনের মধ্যে পরবর্তী কার্যক্রমগুলো শেষ করে সিদ্ধান্ত জানাবে বলেছে গিনেস কর্তৃপক্ষ।

গরুটির স্বাস্থ্য পরীক্ষার পর স্থানীয় এক পশু চিকিৎসক বলেন, ছোট্ট এই গরুটি পুরোপুরি সুস্থ রয়েছে। এর উচ্চতা ও ওজন আর বাড়ার সম্ভাবনা নেই। তাই এটিই হতে পারে বিশ্বের সবচেয়ে ছোট সাইজের গরু।

প্রসঙ্গত, গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসের সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী এখন পর্যন্ত বিশ্বের সবচেয়ে ছোট গরুটি রয়েছে ভারতের কেরালা রাজ্যে। ৪ বছর বয়সী ওই গরুটি লাল রঙের। যেটির উচ্চতা ২৪ ইঞ্চি (২ ফুট) যার ওজন ৪০ কেজি। গরুটির নাম ‘মানিকিয়াম’। ভারতের গরুটি ল্যাব্রাডার কুকুরের চেয়েও ছোট। দক্ষিণ ভারতের রাজ্য কেরালার আথোলিতে বাস মানিকিয়ামের। এর মালিক অক্ষয় এনভি নামের এক ব্যক্তি।

তবে সাভারের আশুলিয়ার চারিগ্রাম এলাকায় পাওয়া ছোট আকৃতির গরু ‘রানি’ ভারতের ‘মানিকিয়াম’ এর চেয়েও কম ওজন ও উচ্চতার। ‘বক্সার ভুট্টি’ জাতের এই খর্বাকৃতির গরুটির বয়স এখন ২ বছর।