ঝালকাঠিতে করোনা সংক্রমণ বেড়েছে

প্রকাশিত: জুলাই ১৯, ২০২১

টানা দুই সপ্তাহের কঠোর বিধিনিষেধের মধ্যেও ঝালকাঠিতে করোনা সংক্রমণ বেড়েই চলেছে।

সাধারণ মানুষের মধ্যে স্বাস্থ্যবিধি না মানা, নানা অজুহাতে বাইরে বের হওয়াকেই দায়ী করছেন চিকিৎসকরা। এদিকে জেলায় করোনা চিকিৎসার ভালো ব্যবস্থা না থাকায় সংকটাপন্ন রোগীদের বরিশাল অথবা ঢাকায় পাঠাতে হচ্ছে।

কঠোর বিধিনিষেধ দিয়েও ঝালকাঠিতে ঠেকানো যাচ্ছেনা করোনা সংক্রমন। জুলাইয়ের শুরু থেকে প্রতিদিন শতাধিক মানুষ করোনায় আক্রান্ত হচ্ছেন। সংক্রমনের গড় হার ৪০ ভাগেরও বেশি। উপসর্গসহ এ রোগে মৃত্যুর তালিকাও হচ্ছে দীর্ঘ।

অনুসন্ধানে দেখা গেছে সাধারণ মানুষের মধ্যে স্বাস্থ্যবিধি মানার প্রবনতা নেই, মাস্ক পরার আগ্রহও কম। হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ড থেকে রোগী এবং তাদের স্বজনরা খেয়াল খুশিমত বাইরে বেরিয়ে অবাধে ঘোরাফেরা করছেন। এতে সংক্রমণ বাড়ছে।

এদিকে চিকিৎসার জন্য জেলার তিনটি উপজেলা হাসপাতালে ৫টি করে এবং সদর হাসপাতালে ২০ মোট ৩৫ টি বেড রয়েছে। যা সংক্রমিত রোগীদের চাহিদার তুলনায় অত্যন্ত নগন্য। আর দেড় বছরেও জেলায় কোন আইসিইউর ব্যবস্থা হয়নি।

চিকিৎসকরা জানান, জেলায় বর্তমানে ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের প্রকোপ বেশি। ঝালকাঠি সদর হাসপাতাল করোনা ওয়ার্ডের দায়িত্বপ্রাপ্ত চিকিৎসক ডা. আবুয়াল হাসান বলেন, আমরা আগে যে ভ্যারিয়েন্ট দেখেছি সেগুলোর চেয়ে এখন নতুন যে ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট আছে তার প্রকোপ বেশি দেখা যাচ্ছে। এই ভ্যারিয়েন্ট অন্যগুলোর চেয়ে আলাদা এবং এর ছড়ানোর মাত্রাও বেশি।

সম্প্রতি অনুষ্ঠিত পৌর এবং ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন হওয়ায় করোনা সংক্রমনের হার বেড়েছে বলে জানান সিভিল সার্জন ডা. রতন কুমার ঢালী। তিনি বলেন, এসব নির্বাচনের কারণে বেশকিছু জনসমাগম হয়েছে। এই জনসমাগমের কারণেই এই সংক্রমন বৃদ্ধি পাচ্ছে। ঝালকাঠিতে এখন পর্যন্ত আইসিইউ বেড নিয়ে আমরা চেষ্টা করে যাচ্ছি বেডের জন্য।

(ডিবিসি)