ফরিদপুরে পাটের ভালো ফলন,দাম নিয়ে শঙ্কা

প্রকাশিত: জুলাই ২৯, ২০২১

প্রখর রোদ আর অতি বৃষ্টির কারণে এবার ফরিদপুরে পাটের ভালো ফলন ও দাম নিয়ে শঙ্কায় রয়েছেন পাট চাষিরা। ক্ষতি পুষিয়ে নিতে সরকার থেকে পাটের দাম নির্ধারণের দাবি জানিয়েছেন তারা।

পাটের রাজধানীখ্যাত জেলা ফরিদপুর। মৌসুমের শুরুতে অতিবৃষ্টি ও প্রচণ্ড রোদে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে অনেক পাটক্ষেত। আগাম বৃষ্টিতে ক্ষেতের নিচু অংশে পানি জমায় পাটের গোড়া পঁচে যাওয়ার আশঙ্কায় অনেকেই অপরিপক্ক পাট কেটেছেন। কোথাও কোথাও পানির অভাবে পাট জাগ দিতে পারছেন না কৃষকরা। আবার বপন মৌসুমে প্রচণ্ড খরা থাকায় বার বার সেচ দেয়ায় বেড়েছে উৎপাদন খরচ।

কৃষকরা জানান, প্রথম দিক খড়া ছিল কিন্তু এরপর বৃষ্টিতে পাট একেবারে নষ্ট হয়ে গেছে। আগে বিঘা প্রতি ১৫ থেকে ২০ মণ পাট হলেও এবার সবোর্চ্চ সেটা ৬ থেকে ৭ মণ করে আসতে পারে।

এদিকে, ক্ষতি পুষিয়ে নিতে সরকারের পক্ষ থেকে পাটের দাম নির্ধারণ করার দাবি চাষিদের। কয়েকজন চাষি জানান, আগে পাটের দাম ছিল ৩ হাজার ৫০০ টাকার মতো কিন্তু এখন সেটা দুই হাজারের কিছু বেশি। সেকারণে সবকিছু মিলে কৃষক অনেক ক্ষতির মধ্যে আছে। সরকার যদি পাটের দাম না বাড়ায় তাহলে না খেয়ে মারা যেতে হবে।

কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগ জানায়, এ বছর ৮৫ হাজার ৭৭ হেক্টর জমিতে পাট আবাদ হেয়েছে। উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ১ লাখ ৮৫ হাজার মেট্রিক টন। কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগের উপ পরিচালক হযরত আলী বলেন, ‘গত বছরে পাটের দাম অস্বাভাবিভাবে বেশি ছিল। আমরা আশা করছি বাজারে পাট আরও বাড়বে এবং একই সাথে পাটের ব্যাপারীও বাড়বে। এতে বাজারে পাট কেনার যে প্রতিযোগিতা সেটা শুরু হবে এবং তখন কৃষকও পাটের ভালো দাম পাবে।’

(DBC)